সেন্টমার্টিন

সেন্টমার্টিন ভ্রমণ খরচ এবং বিস্তারিত সব তথ্য

ভ্রমণ দেশে
শেয়ার করুন

সেন্টমার্টিন দ্বীপ

সেন্টমার্টিন দ্বীপ বাংলাদেশের জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্রগুলোর মধ্যে অন্যতম। আমাকে যদি আপনি জিজ্ঞেস করেন বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দর পর্যটন এরিয়া কোনটি তাহলে আমি নির্দ্বিধায় বলবো সেন্টমার্টিন।

আমার আজকের এই লেখায় সেন্টমার্টিন ভ্রমণ, খরচ, কিভাবে যাবেন এবং কিছু বিধিনিষেধের ব্যাপারে বলা হবে। আশা করি লেখা পড়ে উপকৃত হবেন। এই দ্বীপ নিয়ে কিছু তথ্য,

  • সেন্টমার্টিন দ্বীপের অপর নাম ‘নারিকেল জিঞ্জিরা‘।
  • সেন্টমার্টিন দ্বীপের আয়তন মাত্র ৩৬ বর্গকিলোমিটার।
  • এই দ্বীপ নাফ নদীর মোহনায় অবস্থিত।
  • হুমায়ুন আহমেদের দারুচিনি দ্বীপ সিনেমার মাধ্যমে এই দ্বীপের জনপ্রিয়তা বেড়ে যায়।
  • সাগরের মাঝে হওয়ায় নাবিকরা বা সেখানকার জেলেরা পানির তৃষ্ণা দূর করতে প্রচুর নারিকেল গাছ রোপণ করেন। সম্ভবত সেখান থেকেই নারিকেল জিঞ্জিরা নামকরণ করা হয়।
  • দ্বীপটির নামকরণ নিয়ে অনেক মতবিরোধ রয়েছে। কেউ বলেন দ্বীপের নাম খ্রিষ্টান সাধু মার্টিনের নামানুসারে রাখা হয়েছে। আবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক শেখ বখতিয়ার উদ্দিন এর মতে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মার্টিনের নাম অনুসারে দ্বীপটির নামকরণ করা হয়। এই দ্বীপে খ্রিষ্টানদের জনবসতি না থাকায় দ্বিতি ধারণাকেই সঠিক ধরে নেয়া হয়
  • এই দ্বীপ নিয়ে আরো বিস্তারিত জানতে এখানে ভিজিট করুন। অথবা এই ভিডিও দেখতে পারেন,

এখন খরচ বা কিভাবে যাবেন সেসব নিয়ে বলবো।

সেন্টমার্টিন কিভাবে যাবেন এবং জাহাজ ভাড়া

সেন্টমার্টিন খরচ

সেন্টমার্টিন যাবার কয়েকটা উপায় আছে। সেগুলো হলো,

  • কক্সবাজার হয়ে সেন্টমার্টিন যেতে পারবেন শীপ দিয়ে। এখান থেকে দুইভাবে যেতে পারবেন। সেগুলো হলো,
    • সরাসরি কক্সবাজার টু সেন্টমার্টিন। এখানে একটু সমস্যা আছে। বর্তমানে অনেক ঢাকঢোল পিটিয়ে কক্সবাজার টু সেন্টমার্টিন শীপ(এমভি বে ওয়ান) আসছে সেটার খুব বাজে রিভিউ পেয়েছি। রিভিউ এখানে দেখতে পারেন।
    • আরেকটা উপায় হলো কক্সবাজার থেকে টেকনাফ। সেখান থেকে সেন্টমার্টিন। এইভাবে একটু কষ্টসাধ্য এবং খরচও একটু বেশি হবে।
  • সবচেয়ে পারফেক্ট উপায় হচ্ছে সরাসরি টেকনাফ থেকে যাওয়াটা। চট্টগ্রাম টু টেকনাফ বাস পাবেন। টেকনাফের জেটি ঘাটে নেমে শীপে উঠে যাবেন। শীপের ভাড়া ৬৫০ থেকে ১৮০০ টাকার আশেপাশে হয়।
  • আর যারা একটু এডভেঞ্চার প্রিয় মানুষ তারা টেকনাফে যেয়ে ট্রলারে করে যেতে পারেন। ট্রলার ভাড়া ১৫০ থেকে ৩৫০ টাকা হয়ে থাকে।

শীপ এবং ট্রলার ভাড়া নিয়ে আরো বিস্তারিত জানতে এবং সেন্টমার্টিন দ্বীপের জাহাজ টিকেট বুকিং তথ্য জানতে এই লেখাটি দেখে আসুন।

সেন্টমার্টিন হোটেল ভাড়া

সেন্ট মার্টিন

সেন্টমার্টিনে কমদামি হোটেল পাবেন আবার বেশি দামি হোটেলও পাবেন। যদিও ওগুলো হোটেল না, রিসোর্ট। আপনার কাজ হলো নিজের জন্য পারফেক্ট রিসোর্ট খুঁজে বের করা। আমি আপনাকে সাজেস্ট করবো পশ্চিম বিচের রিসোর্টগুলোর একটাতে উঠুন। সেন্টমার্টিনের সেরা ভিউ পাবেন ওদিক দিয়ে।

ভাড়া নিয়ে বিস্তারিত জানতে এই লেখাটা পড়ুন। এখানে ভাড়া, কনটাক্ট নাম্বার সবকিছু পেয়ে যাবেন। আর আমার সাজেশন্স থাকবে যে রিসোর্টই সিলেক্ট করবেন সেটা নিয়ে গুগল,ইউটিউবে ঘাটাঘাটি করুন। ঘাটাঘাটি না করে উঠবেন না।

গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো একেবারে সাগরের পাশে রিসোর্ট নিবেন। অনেকে বাজারে কমদামে রিসোর্ট নেন। আমি আসলেই বুঝিনা যে সেন্টমার্টিন গিয়ে বাজারের মধ্যে রাত কাটিয়ে কি লাভ! সাগরের পাশে রুম নিবেন আর এনজয় করবেন সারারাত।

সেন্টমার্টিন দ্বীপের দর্শনীয় স্থান

সেন্ট মার্টিন

অনেক সাইটে দেখলাম অনেকে এই ব্যাপারে প্রশ্ন করেন। দেখুন, সেন্টমার্টিন এতো ছোট একটা দ্বীপ যে আপনি একদিন হাতে নিয়ে ঘুরতে বের হলে পুরো দ্বীপ ঘুরে ফেলতে পারবেন। এক্ষেত্রে আমার সাজেশন্স থাকবে বাইসাইকেল নিয়ে ঘুরুন।

ঘন্টাপ্রতি ৩০-৬০ টাকায় এসব বাইসাইকেল পেয়ে যাবেন। এগুলোর কোয়ালিটি বা বিভিন্ন কারণে দামের তারতম্য হয়। আপনার যেটা ভালো লাগবে সেটা নিয়ে বের হয়ে যাবেন। এর চারপাশেই সাগর। এরমাঝে তেমন দর্শনীয় স্থান নেই। তবে আমার দেয়া সময় অনুযায়ী নিমোক্ত জায়গাগুলোতে যাবেন। স্বর্গীয় অনুভূতি পাবেন।

  • দিনের বেলা ভাটার সময় বাইসাইকেল চালিয়ে চলে যাবেন ছেঁড়াদ্বীপ। যদিও ট্রলারে বা স্পিডবোটে করে যাওয়া যায়। কিন্তু বন্ধুবান্ধবের ট্যুর হলে অবশ্যই বাইসাইকেলে যাবেন। জোয়ারের সময়টা জেনে যাবেন যেন ওই সময়ের আগে মূল দ্বীপে ফিরে আসতে পারেন। নাহলে বিপদে পড়বেন। ভাটার সময় সেন্টমার্টিনের মূল দ্বীপ আর ছেঁড়াদ্বীপের মাঝে একটা চর জেগে উঠে যেটার নাম ‘গলাচিপা‘। বাইসাইকেল দিয়ে গেলে ভাটার সময় এই রাস্তা দিয়ে ছেঁড়াদ্বীপে প্রবেশ করতে পারবেন আবার ফেরত আসতে পারবেন। কিন্তু জোয়ারের সময় এটা ডুবে যাবে। তখন মূল দ্বীপে ফিরতে গিয়ে সমস্যায় পড়বেন। তাই জোয়ার ভাটা মাথায় রেখে বাইসাইকেল নিয়ে যাবেন। ভয়ের কিছু নেই। স্থানীয়দেরকে জিজ্ঞেস করে জোয়ার ভাটার সময়টা জেনে নিবেন। সেই অনুযায়ী সফর করবেন।
  • ভোরবেলা জেটিঘাট থেকে সূর্যোদয় দেখবেন। সুন্দর দৃশ্য।
  • বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পশ্চিম বিচে থাকবেন। সূর্যাস্ত দেখবেন। ভাগ্য ভালো থাকলে পুরো রক্তাক্ত লাল আকাশও দেখতে পারেন!
  • রাতের বেলা জেটিঘাটে যাবেন। অসাধারণ একটা অনুভূতি পাবেন। সাগরের হালকা ঠান্ডা বাতাস, ঢেউয়ের গর্জন, রাতের তারা/চাদ,জাহাজের মৃদু আলো ইত্যাদি মিলিয়ে সত্যিকার অর্থেই স্বর্গীয় আনন্দ পাবেন।

আমার বলে দেয়া সময়ে এই জায়গাগুলোতে যাবেন। আর আসার পর অনুভূতি জানাবেন এই লেখার নিচে। এটা বলতে পারি যে খারাপ লাগবেনা।

খরচ কত হতে পারে?

সেইন্টমার্টিন

সেন্টমার্টিন ভ্রমণের খরচ নিয়ে একটা ধারণা দিবো আমি। একজনের খরচ হিসেবে ধারণা দিবো। শুধু হোটেল/রিসোর্ট ভাড়া টোটাল রুম হিসেবে বলবো(রুমের যে ভাড়া বলবো সেই ভাড়ায় একজনও থাকতে পারেন,৪ জনও থাকতে পারেন)। তাহলে একজনের টোটাল খরচের হিসাব হলো,

  • চট্টগ্রাম থেকে টেকনাফ বাস ভাড়া ৪০০ টাকা। সৌদিয়া বাস পপুলার।
  • টেকনাফে নেমে নাস্তা করতে ৫০/৬০ টাকা খরচ হবে ডিম-পরোটা বা এরকম কিছু নাস্তা করলে।
  • শীপের ভাড়া কত তা উপরের লিংকে গেলেই পাবেন। শীপের এক টিকেটে আসা যাওয়া করা যায়। তাই টিকেট যত্ন করে রাখবেন। হারালে সমস্যায় পড়তে পারেন।
  • সেন্টমার্টিনে নেমে রিকশা নিতে পারেন। তবে শীপ যখন জেটিতে পৌছায় তখন ৫০-৮০ টাকার রিকশা ভাড়া ২০০/২৫০ হয়ে যায়! তাই আমি বলবো একটু হেটে দূরে গিয়ে রিকশা নিন। কমে পাবেন। তবে রিসোর্টের দূরত্ব বুঝে ভাড়া ফুরাবেন। কারণ এই দ্বীপে দূর বলতে কোনো শব্দ নাই। হেটেই সব জায়গায় যেতে পারবেন! আমি সবসময় জেটি থেকে হেটে রিসোর্টে চলে যাই। ২০০ টাকা এখানে না দিয়ে মাছ খেয়ে ফেলা ভালো। একটু মজা করলাম আরকি। আপনি একেবারে নতুন হলে হেটে যেতে পারবেন না। অনেক দূর মনে হবে।
  • বাইসাইকেল ভাড়া ৩০-৬০ টাকা।
  • লাঞ্চ-ডিনার খরচ ১৫০-২০০ টাকা হবে। প্রতিটা মাছ ১০০-২০০ এরকম দামে পাবেন। দাম ফুরাবেন। যে দাম বলবে সেই দামে কিনবেন না। রেস্টুরেন্টগুলোতে মাছ সাজানো থাকে। ওখান থেকে পছন্দ করে অর্ডার দিবেন। ওরা রান্না করে আপনাদেরকে দিবে। আবার প্যাকেজ সিস্টেম পাবেন। প্যাকেজে ভর্তা,ডাল,মাছ সবই থাকবে। মাছও আপনার পছন্দমতো হবে। আমি ব্যক্তিগতভাবে প্যাকেজ খাবার পছন্দ করি।
  • হোটেল ভাড়া উপরের লিংক থেকে দেখে নিবেন। বুকিং দিতে গেলে ভাড়া নিয়ে আপনার আইডিয়া হয়ে যাবে। তবে ১৫০০-২৫০০ টাকায় ভালো ভালো রুম পাবেন। ধরুন, ২০০০ টাকায় রুম নিয়েছেন ৪ বন্ধু মিলে। তাহলে একজনের ভাড়া পড়বে ৫০০ টাকা।
  • ওখানে সব জিনিসের দাম একটু বেশি। তাই যে জিনিসগুলো ওখানে বারবার লাগবে সেগুলো কিনে নিয়ে যাবেন পর্যাপ্ত। নাহলে ১০ টাকার জিনিস ১৫ টাকা দিয়ে কিনতে হবে! দাম কতটা বেশি রাখতে পারে বুঝতেই পারছেন।
  • নিজের ব্যক্তিগত খরচ আলাদা হিসাব করবেন।

মোটামুটি খরচ নিয়ে একটা আইডিয়া হয়ে যাবে এভাবে হিসাব করলে। ৭-১০ জনের গ্রুপের জন্য চট্টগ্রাম থেকে সেন্টমার্টিন খরচ হিসাব করলে জনপ্রতি ৩৫০০ টাকার আশেপাশে খরচ হতে পারে। ঢাকা থেকে হলে ৪৫০০-৫০০০ টাকা লাগতে পারে । আনুমানিক একটা খরচের হিসাব দিলাম। তবে সবসময় এক্সট্রা টাকা নিয়ে যাবেন। বিপদের বন্ধু হিসেবে।

কিছু ব্যাপার খেয়াল রাখবেন

সেইন্ট মার্টিন

এই ব্যাপারগুলো অবশ্যই খেয়াল রাখবেন এবং অবশ্যই মানার চেষ্টা করবেন,

  • যেখানে সেখানে ময়লা ফেলে পরিবেশ নষ্ট করবেন না।
  • স্থানীয়দের সাথে খারাপ ব্যবহার করবেন না। ওরা সাধাসিধে মানুষ।
  • ওখানে যাই করেন অন্যের অসুবিধার কারণ হবেন না।
  • সেন্টমার্টিনের নতুন বিধিনিষেধ দেখুন এখানে

সেন্টমার্টিন ভ্রমণের ভিডিওটি দেখতে পারেন। এটা দ্বিতীয় পর্ব।

ধৈর্য ধরে লেখাটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ। কোনো প্রশ্ন থাকলে মন্তব্য করবেন।

আমাদের আরো ব্লগ পড়ুনঃ